1. redwanlkm30@gmail.com : NewsBangla :
রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০, ১২:০১ পূর্বাহ্ন

করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে ৩৭১১ জন যাত্রী সহ জাপান সমুদ্রে জাহাজ নোঙর

রিপোর্টারের নাম
  • সময় মঙ্গলবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ২১৭ view
জাপান সমুদ্র বন্দরে অবস্থানকৃত যাত্রিবাহী ক্রুজ

মরিতা মনি।জাপানঃ সোমবার ইউকোহামা বে পৌঁছে যাওয়া জাহাজে আটজন ব্যক্তির জ্বরের মতো লক্ষণ রয়েছে বলে জানিয়েছেন জাপান সরকারের শীর্ষ মুখপাত্র ইয়োশিহিদ সুগা।

টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা যায়, সোমবার সন্ধ্যায় ডায়মন্ড প্রিন্সেসে আরোপিত বেশ কয়েকটি কোয়ারেন্টাইন অফিসার রা ২৬৬৬ জন যাত্রী এবং ১,০৪৪ জন ক্রু কে চেক করতে ডেকেছিলেন।

২৬ ই জানুয়ারী হংকংয়ে যাত্রা করা ২৬ বছর বয়সী এক যাত্রী ভাইরাসটির জন্য ইতিবাচক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরে এই পদক্ষেপ নিয়েছেন, এই ভাইরাসে ইতোমধ্যে চীনে ৪২৫ জন মারা গেছে।

ক্রুজের অপারেটর কার্নিভাল জাপান এক বিবৃতিতে বলেছে, লোকটি “তিনি যখন আমাদের সাথে চলছিল তখন জাহাজের অভ্যন্তরে কোনও মেডিকেল সেন্টারে যাননি”।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “তিনি যে হাসপাতালে অবস্থান করছেন, তার মতে তার অবস্থা স্থিতিশীল এবং তাঁর সাথে যাত্রা করা পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সংক্রমণ পাওয়া যায়নি।”

মায়ের সাথে জাহাজে তাঁর কুড়ি বছরের কন্যা মঙ্গলবার বেসরকারি সম্প্রচারকারী টিবিএসকে বলেছিলেন যে সমস্ত যাত্রীকে তাদের ঘরে থাকতে এবং পরীক্ষার জন্য অপেক্ষা করতে বলা হয়েছিল।

কার্নিভাল জাপান জানিয়েছে, যোকোহামা থেকে জাহাজের যাত্রা কমপক্ষে ২৪ ঘন্টা বিলম্বিত হতে পারে ।

‘কোয়ারেন্টাইন স্টেশন’

জাপানের শীর্ষ কর্মকর্তা সুগা জানান, ক্রুজ জাহাজটি শনিবার জাপানের দক্ষিণাঞ্চলীয় ওকিনাওয়ার প্রদেশের একটি বন্দরে পৃথক পৃথক ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে গিয়েছিল এবং কোয়ারেন্টাইন কর্মকর্তারা যাত্রী ও ক্রুদের অবতরণ করার জন্য শংসাপত্র জারি করেছিলেন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের এক কর্মকর্তা জানান যে, ওই সময়ে আরোহীদে মধ্যে কেউই কোনও লক্ষণ দেখাতে পারেনি এবং হংকংয়ে যাত্রা করা ব্যক্তিটির ঘটনা সেসময় জানা যায়নি।

তার অসুস্থতার লক্ষন উদ্ভবের পরে, দ্বিতীয় কোয়ারান্টাইন আয়োজন করা হয়েছিল।

স্বাস্থ্য মন্ত্রালয়ের অপর এক কর্মকর্তা এএফপিকে বলেছেন, কোয়ারেন্টাইন কর্মকর্তারা এখন বোর্ডে থাকা প্রত্যেকের অবস্থা পরীক্ষা করছেন এবং নতুন করোনা ভাইরাস জনিত অসুস্থতার লক্ষণগুলির পাশাপাশি ম্যালেরিয়া ও ডেঙ্গু জ্বরের মতো অন্যান্য সংক্রামক রোগগুলির পরীক্ষা করছেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ক্যাটসুনোবু কাটো সংসদকে বলেছিলেন যে ভাইরাসটির পরীক্ষা তিনটি গ্রুপে করা হবে: যাদের লক্ষণ রয়েছে তারা, যারা হংকংয়ে এসেছেন এবং যারা সংক্রামিত যাত্রীর সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ করেছেন ।

ফলাফল না পাওয়া পর্যন্ত “বোর্ডে থাকা প্রত্যেকে … সেখানেই থাকবে”। 

আই নিউজ কে বলা হয়েছে, ইউকোহামা বন্দরে জাহাজটিকে ডক করতে এবং যাত্রীদের জাপানি মাটিতে অবতরণ করার অনুমতি দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, “পৃথকীকরণ স্টেশনে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে,” ডাব্লুএইচওর ১০ দিনের ইনকিউবেশন পিরিয়ড বিবেচনায় রেখে।

ছবিতে জাপানে আসা চীনা নাগরিক

নতুন ভাইরাসের লক্ষণগুলি দেখানো চীন থেকে আগত নাগরিক দের স্বাস্থ পরীক্ষা করা হচ্ছে।

ইমিগ্রেশন সার্ভিস এজেন্সি মঙ্গলবার জানিয়েছে, এ পর্যন্ত মোট ১১ জন বিদেশিকে প্রবেশে বাধা দেওয়া হয়েছে।

সোমবার পর্যন্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় জানিয়েছে যে, জাপানে ২০ জন নতুন ভাইরাসের আক্রান্ত ব্যক্তির জন্য ইতিবাচক পরীক্ষা করেছেন, যাদের মধ্যে চারজনের কোনও লক্ষণই দেখা যায়নি।

জাপানও ৫০০ এরও বেশি নাগরিককে উহান থেকে বহন করেছে, যেখানে করোনাভাইরাসটির উদ্ভব হয়েছিল।

স্থানীয় ক্যারিয়াররা প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্রবিন্দুতে বিমানগুলি স্থগিত করেছে, অল নিপন এয়ারওয়েজ মঙ্গলবার জানিয়েছে, এর স্থগিতাদেশ এখন ২৮ শে মার্চের মধ্যে বাড়ানো হবে। এটি টোকিওর হানাদা ও নারিতা বিমানবন্দর থেকে বেইজিংয়ের বিমানের সংখ্যা হ্রাস করার ঘোষণা দিয়েছে।

আপনার ফেসবুক আইডিতে শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ পড়ুন
© All rights reserved © https://inewsbangla.com
Theme Customization BY TVSite.Com