ধনবাড়ী(টাংঙ্গাইল) প্রতিনিধী: জহিরুল ইসলাম মিলনঃ- করোনাভাইরাস মোকাবেলায় টাংগাইলের ধনবাড়ীতে জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা, প্রেসক্লাবে কর্মরত সংবাদকর্মীরা জীবনর ঝুঁকি নিয়ে সংবাদ সংগ্রহ করছেন। নেই কোন তাদের সুরক্ষা পোষাক।

করোনাভাইরাস ছোঁয়াচে, তাই ব্যক্তি থেকে এবং এক জনগোষ্ঠী থেকে অন্য জনগোষ্ঠীতে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশেও মৃত্যু হয়েছে। সরকার করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে জনগনকে ঘর থেকে বাহির হতে নিষেধ করেছেন। সারাদেশে চলছে অঘোষিত লকডাউন। তবুও থেমে নেই জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা ও প্রেসক্লাবের সংবাদকর্মীরা।

এ সংবাদকর্মীরা দেশের সার্বিক অবস্থা, বাজার মনিটরিং, ভ্রাম্যমান আদালতের সংবাদ সংগ্রহের বিভিন্ন কাজে বাড়ির বাইরে থাকছেন। কোন রকম ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ (পিপিই) ছাড়াই নিয়মিত পেশাগত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন তারা। এমতাবস্থায় নোভেল করোনা ভাইরাস সবচেয়ে ঝুঁকিতে রয়েছেন সংবাদকর্মীরা। কর্তব্য পালন করতে গিয়ে অসংখ্য মানুষের মুখোমুখি হতে হচ্ছে সংবাদকর্মীদের।

তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সরবরাহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান কিংবা সরকার কেউ করছেনা। বাধ্য হয়ে কর্মরত সংবাদকর্মীরা বিনা প্রোটাকশন সংবাদ সংগ্রহের জন্য চষে বেড়াচ্ছেন। ধনবাড়ী জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার যুগ্ন সম্পাদক মোঃ জহিরুল ইসলাম মিলন বলেন, সংবাদকর্মীরা সবসময় অবহেলার শিকার। সারাদেশে চলছে অঘোষিত লকডাউন। তবুও থেমে নেই আলোচিত ধনবাড়ী জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার ও প্রেসক্লাবে সংবাদকর্মীরা।

আমাদের ধনবাড়ী জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা এবং প্রেসক্লাব সহ মিডিয়ার ১৭ জন সংবাদকর্মী আছেন। তারা করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাহসিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। সংবাদকর্মীদের সুরক্ষার জন্য কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। যা অত্যান্ত দুঃখজনক। তিনি সংবাদকর্মীদের সুরক্ষার জন্য সরকারের নিকট পিপিই সরবরাহ করার জোর দাবি জানাচ্ছি।

Leave a reply

Please enter your comment!
Please enter your name here